বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কাশ্মীরের জামা মসজিদ বন্ধ করে জুমার নামায পড়তে দেয়নি ভারত জুমার আলোচনায় খতিবদের ডেঙ্গু-গুজব-বন্যা নিয়ে বক্তব্য রাখার আহ্বান ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর মসজিদে গুলি করতে গিয়ে উল্টো ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন সাবেক মার্কিন সেনা! ইন্টারনেট সেবা নিতে চাইলে কোরআনে শপথ নিতে হবে মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে আয়ের একমাত্র অবলম্বন ভ্যানটি চুরি হয় বিমানবন্দরে লাগেজ হারিয়ে গেলে ফিরে পাওয়ার উপায় আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতির সাথে হিজরী সন সম্পৃক্ত: চরমোনাই পীর The story of success -Ashraf Ali Sohan চিত্রনায়িকা পরী মণি ও (এডিসি) সাকলায়েনের নতুন ভিডিও ফাঁস, দেখুন গোপালপুরে মসজিদে হামলায় বৃদ্ধ নিহত, সড়ক অবরাধ, আটক দুই কোম্পানীগঞ্জে দিনদুপুরে কলেজছাত্র অপহরণ ৪ দিন পরও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ বানিয়াচংয়ে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের আবিস্কার নিয়ে বিজ্ঞান মেলা অনুষ্ঠিত খুলনায় স্কুল ছাত্রীর নগ্ন ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ায় যুবক গ্রেফতার

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ চেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ব্যারিস্টার সুমন এর আবেদন

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২০
  • ৪৬৯ Time View

করোনা  এর এই মহা দুর্যোগের সময় কাণ্ডজ্ঞানহীন বক্তব্য দেওয়া এবং দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণের কারণে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা জাহিদ মালেক এর পদত্যাগ দাবি করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সমাজসেবক ব্যারিস্টার  সুমন।

ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের নিজস্ব ফেসবুক পেজে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার কাছে এই দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী- আপনি জানেন যে গতকালকে আপনার সামনে স্বাস্থ্য সচিব এবং মহাপরিচালক দুইজন দুই রকম কথা বলেছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী- আমি বারবার বলে আসছি; বর্তমানে যতগুলা মন্ত্রণালয় সবচেয়ে ব্যর্থ হয়েছে এর মধ্যে প্রথম মন্ত্রণালয় হলো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

সব খবর সবার আগে পেতে গ্রুপে জয়েন করুন 

কেন হবে না মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, এমন একজন মন্ত্রী এটার স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসবে আছেন যিনি সর্বোচ্চ ব্যার্থ। আপনি মনে হয় দেখেছেন যে তিনি ৩০ জন লোক পিছনে নিয়ে করোনা ভাইরাসের ব্যাপারে আমাদেরকে সচেতন করতে গিয়েছিলেন।

আপনি জানেন যে, তাকে করোনা প্রতিরক্ষায় ন্যাশনাল কমিটির প্রধান করা হয়েছে এবং তিনি জনসমক্ষে সাংবাদিকদের সামনে বলেছেন উনি ন্যাশনাল কমিটির সভাপতি ঠিকই কিন্তু তিনি ‘জানেন না কোথায় কি হচ্ছে’। এধরনের কথা বলার পর মিনিস্ট্রিয়াল রেস্পন্সিবিলিটি অনুসারে ওনার পদত্যাগ করার কথা ছিল।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি জানেন যে, উনি সেই স্বাস্থ্যমন্ত্রী যনি গতবছর যখন ঢাকায় ৯০ হাজার লোক ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিল তখন তিনি থাইল্যান্ডের কোথাযও পরিবার নিয়ে বেড়াতে গিয়েছিলেন।

উদাহরণ টেনে ব্যারিস্টার  বলেন, আমি শুধু একটা কথা বলি নিউজিল্যান্ডে লকডাউন থাকা অবস্থায় একজন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সী-বিচে তাঁর বাচ্চাদের নিয়ে গিয়েছিলেন যে কারণে তাকে পদত্যাগ পত্র দিতে হয়েছিলো। পরবর্তিতে তাকে অন্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে দেয়া হয়েছে।

সব খবর সবার আগে পেতে গ্রুপে জয়েন করুন 

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমি একটা কথা বলতে চাই, আপনি হয়তো ফেসবুকে দেখেছেন- মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ছেলে এবং মাননীয় স্বাস্থ্য সচিব ও মহাপরিচালক মিলে একটা সিন্ডিকেটের কথা বলা হয়েছে। যারা ভয়ানক দুর্নীতির সাথে জড়িত। N-90 যে মাস্কের কথা বলা হয় এবং যে মাস্ক আমদানি করতে না পারার কারণে ডাক্তাররা হুমকির সম্মুখীন এ বিষয়ে এই সিন্ডিকেটের প্রতা দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, মাননীয় নেত্রী কোন কথা বলবো আপনার কাছে। অনেকগুলা কথা আছে। তবে একটা কথা বলতে চাই আপনি কখন বুঝবেন সমাজ নষ্ট হয়ে গেছে। হযরত আলী রা. এর উদ্বৃতি টেনে সুমন বলেন, যখন দেখবেন বিভিন্ন মূর্খরা মন্ত্রী হয়ে গেছে এবং ধনীরা কৃপন হয়ে গেছে। তখন বুঝবেন আমরা কিয়ামতের দিকে রওনা দিচ্ছি।

মাননীয় নেত্রী আমি আপনাকে ধন্যবাদ জানাই, আপনি যেভাবে কষ্ট করে যাচ্ছেন একজন বা দু-একটা মন্ত্রণালয়ের জন্য ব্যার্থতার জন্য আপনাকে এত ভালো ভালো কাজ গুলা নষ্ট হয়ে যেতে পারে না। মাননীয় মন্ত্রী আমি বলছি না যে তাদেরকে বদলে অন্য আরেকজনকে দিলেই যে তাড়াতাড়ি দিনের ভিতরে সব ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু এমন একটি ক্রাইসিস মুহূর্তে এমন একজন ব্যর্থ লোককে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মতো গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় রাখার কোন সুযোগ নেই।

ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনি খোঁজ নিয়ে দেখুন এবং মানুষকে জিজ্ঞেস করেন যে, মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ব্যাপারে কোন ধরনের কনফিডেন্স আছে কিনা। দেখবেন বেশিরভাগ লোকই তার ব্যাপারে কোনো কনফিডেন্স প্রকাশ করবে না। তাই আজকে আমরা সুস্থ আছি এবং করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশ থেকে যারা বিদায় নিবে তারা এমন একজন মন্ত্রী দেখতে চায় না। আপনার চাইলে আপনি পরিবর্তন করে ফেলতে পারেন।

ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন বলেন, প্রয়োজন হলে তাকে অন্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে দিয়ে দিন। যে মন্ত্রী ঠিকমতো ক্যামেরার সামনে হিসেবে বলতে পারে না যে এই পর্যন্ত কতজন করোনা আক্রান্ত হয়েছে। তাকে কেন মন্ত্রনালয়ে রাখতে হবে। একই সাথে তিনি বলেন যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঠিকমত পিপিই বলতে পারেনা বরং বলে পিপিপি এমন স্বাস্থ্যমন্ত্রী অবশ্যই স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় থাকা উচিত না। তিনি বলেন স্বাস্থ্য মন্ত্রীর মাথায় পিপিই ‘পার্সোনাল প্রটেকশন ইকুইপমেন্ট’ এই বিষয়টা নেই বরং তার মাথার মধ্যে আছে বিজনেস টার্মস পিপিপি অর্থাৎ ‘প্রাইভেট পাবলিক পার্টনারশিপ’। অর্থাৎ তার মাথার মধ্যে ব্যবসার চিন্তাই শুধুমাত্র রয়েছে! এমন একজন লোক অবশ্যই স্বাস্থ্য মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করতে পারে না।

আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবারও করজোড়ে আবেদন করছি এমন একটি ক্রাইসিস মুহূর্তে এমন একজন লোককে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় না রেখে তাকে পরিবর্তন করে অন্য মন্ত্রণালয় দিয়ে দিন। একই সাথে ব্যারিস্টার সুমন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করেন এবং বলেন গণমানুষের চাহিদা অনুসারে স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে পরিবর্তন করার জোর আবেদন জানান।

সব খবর সবার আগে পেতে গ্রুপে জয়েন করুন 

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

পরিচালনা পর্ষদ

সম্পাদক ও প্রকাশক:
Admin
© ২০২০ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত.মুসলিম ভয়েস কোপেরেটিভ লি.
Design By NooR IT
themesba-lates1749691102