মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কাশ্মীরের জামা মসজিদ বন্ধ করে জুমার নামায পড়তে দেয়নি ভারত জুমার আলোচনায় খতিবদের ডেঙ্গু-গুজব-বন্যা নিয়ে বক্তব্য রাখার আহ্বান ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর মসজিদে গুলি করতে গিয়ে উল্টো ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন সাবেক মার্কিন সেনা! ইন্টারনেট সেবা নিতে চাইলে কোরআনে শপথ নিতে হবে মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে আয়ের একমাত্র অবলম্বন ভ্যানটি চুরি হয় বিমানবন্দরে লাগেজ হারিয়ে গেলে ফিরে পাওয়ার উপায় আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতির সাথে হিজরী সন সম্পৃক্ত: চরমোনাই পীর The story of success -Ashraf Ali Sohan চিত্রনায়িকা পরী মণি ও (এডিসি) সাকলায়েনের নতুন ভিডিও ফাঁস, দেখুন গোপালপুরে মসজিদে হামলায় বৃদ্ধ নিহত, সড়ক অবরাধ, আটক দুই কোম্পানীগঞ্জে দিনদুপুরে কলেজছাত্র অপহরণ ৪ দিন পরও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ বানিয়াচংয়ে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের আবিস্কার নিয়ে বিজ্ঞান মেলা অনুষ্ঠিত খুলনায় স্কুল ছাত্রীর নগ্ন ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ায় যুবক গ্রেফতার

শরীয়ত বয়াতীর শরীয়ত বিরোধী বাক্যচার

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৩৩৩ Time View

সুলতান আফজাল আইয়ূবী

আমাদের দেশে একটা বিষয় এখন মানুষের মাথায় চেপেছে, সেটা হলো যেভাবেই হোক ভাইরাল হতে হবে। এই ভাইরাল হওয়ার এখন অন্যতম মাধ্যম হলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক,ব্লগ এবং ইউটিউব।হুজুর থেকে নিয়ে মজুর সবাই এখন ছুটছে ভাইরালের পথে। তাই যে যেভাবেই পারছে ভাইরাল হওয়ার জন্য অযথায় বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছে।ইদানিং ভাইরাল হওয়া একজন ব্যক্তি হল শরিয়ত বয়াতী।

গত বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) শরিয়ত বয়াতির বিরুদ্ধে ধর্মীয় নিরাপত্তা আইন ২০১৮ ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মির্জাপুর উপজেলার আগধল্যা গ্রামের মো. ফরিদুল ইসলাম বাদী হয়ে মির্জাপুর থানায় মামলা করেন।শনিবার ভোরে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বাশিল থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ওইদিনই টাঙ্গাইলের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মো. আসলাম মিয়ার আদালতে হাজির করে মির্জাপুরে থানা পুলিশ দশ দিনের রিমান্ড আবেদন করে। শুনানি শেষে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে।

শরিয়ত বয়াতি মির্জাপুর উপজেলার আগধল্যা গ্রামের পবন মিয়ার ছেলে।মামলার নথি থেকে জানা যায়, গত ২৪ ডিসেম্বর রাতে ঢাকার ধামরাই উপজেলার রৌহাট্টেক এলাকায় পীর হযরত হেলাল শাহ্ পীরের ১০ম বার্ষিক পালাগানের অনুষ্ঠানে শরিয়ত বয়াতি গানে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছেন। সেই গান ইউটিউব ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সারাদেশে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এবার আসুন তার বক্তব্যের কিছু অংশ নিয়ে আলোচনা করি, আমি চাচ্ছিলামনা তার বিষয়ে কিছু লেখার জন্য কিন্তু অনেকেই বলছেন তার বক্তব্যে চ্যালেঞ্জ ছিল, কেউ যদি প্রমান করতে পারে যে গান হারাম তবে তিনি গান ছেড়ে দিবেন এবং ৫০ লক্ষ টাকা চ্যালেঞ্জ।এখন কেন আলেমরা চ্যালেঞ্জ গ্রহন করছেন না? এ ব্যাপারে আমি বলি মূর্খের সাথে আবার কিসের তর্ক? তর্ক করতে হয় জ্ঞানীদের সাথে। কেননা,মূর্খ ব্যক্তির সাথে তর্ক করলে সে আপনাকে অপমানিত করবে। সে যে কত বড় মূর্খ! সে বলেছে সূরা সাবার ৯ আয়াতে আছে দাউদ আ:গান করতেন এখন আপনারাই কুরআনের আয়াতের অর্থ আর তার বক্তব্য মিলান।

সুরা সাবার ৯ নং আয়াত নিম্নরুপ:- أَفَلَمْ يَرَوْا إِلَى مَا بَيْنَ أَيْدِيهِمْ وَمَا خَلْفَهُم مِّنَ الس وَالْأَرْضِ إِن نَّشَأْ نَخْسِفْ بِهِمُ الْأَرْضَ أَوْ نُسْقِطْ عَلَيْهِمْ كِسَفًا مِّنَ السَّمَاء إِنَّ فِي ذَلِكَ لَآيَةً لِّكُلِّ عَبْدٍ مُّنِيبٍ তারা কি তাদের সামনের ও পশ্চাতের আকাশ ও পৃথিবীর প্রতিলক্ষ্য করে না? আমি ইচ্ছা করলে তাদের সহ ভূমি ধসিয়ে দেব অথবা আকাশের কোন খন্ড তাদের উপর পতিত করব। আল্লাহ অভিমুখী প্রত্যেক বান্দার জন্য এতে অবশ্যই নিদর্শন রয়েছে। এরুপ মূর্খের চ্যালেঞ্জ আবার কিভাবে গ্রহন করে?যে তার ১৭মিনিট ৪১ সেকেন্ডের বক্তব্যের ১০ বার আলেমদেরকে শালা বলে গালি দিয়েছে। এরুপ অশুভ বাক্যচারিতার চ্যালেঞ্জ গ্রহন করার মত বোকামী কে করবে? তার বক্তব্যে আরও কিছু মূর্খতা দেখুন সে বলেছে নবীজি নিজেই আল্লাহ’ ‘দাউদ (আ.) কোনো নবী না, তিনি বয়াতী ছিলেন,তিনি একতারা,দুতারা,বেহালা ইত্যাদি বাজাতেন’, ‘রাসুল (সা.) গান না শুনে ঘুমাইতেন না’ নবীজি আবু মুসা আশয়ারী (র.) কে ২৩ রকমের গানের বাদ্যযন্ত্র হাদিয়া প্রদান করিয়াছেন। ওই সব বাদ্যযন্ত্র দাউদ নবীর ছিল’, ‘যারা নামাজ পড়ে সেজদা দিয়া কপালে কালো দাগ করে, তাদের কপাল থেকে ১১৩টি কিরা বের হয়’ এরুপ বক্তব্য সে কোন ধর্মমতে দিল?

কথাগুলো কুরআনের কোথা থেকে বললেন বয়াতি, অথবা ধর্মীয় বিষয়ে তার এইসব বক্তব্যের ধর্মসূত্র কী, তা জানার জন্য অবশ্যই রিমান্ড বা জিজ্ঞাসাবাদ জরুরি৷ কারণ এ ধরনের কথাবার্তা যে বিভ্রান্তিকর ও সমাজে উসকানীর সৃষ্টি করে এমনকি তা দাঙ্গা পর্যন্ত বাঁধিয়ে দিতে পারে৷ একটি রাষ্ট্রের দায়িত্ব হল নাগরিকের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা৷ বয়াতীকে গ্রেপ্তার না করলে খোদ বয়াতীও নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতেন৷ বয়াতীর সবগুলো বিষয় নিয়ে লিখলে আর্টিকেল অনেক লম্বা হয়ে যাবে, তবুও কারও কোন বিষয় নিয়ে ঝামেলা থাকলে স্থানীয় কোন আলেমের কাছ থেকে জেনে নিবেন।

বয়াতী বলেছেন গান হারাম এ কথা কোরআনে নেই, একথা সত্য, কেননা,ইসলাম গানকে সমর্থন করে এবং ইসলামী সাহিত্য ও সংস্কৃতির ভান্ডারে গানের পরিধি কম নয়। কিন্তু গানের নামে বেহুদা কথা,বাদ্য,গানের মাঝে ধর্মের উস্কানী কখনো ইসলাম সমর্থন করেনা।এ ব্যাপারে একটি সহীহ হাদীস রয়েছে। যা হল” উম্মতের মধ্যে এমন কিছু লোক সৃষ্টি হবে, যারা ব্যভিচার, রেশম, মদ ও বাদ্যযন্ত্রকে হালাল সাব্যস্ত করবে।”-সহীহ বুখারী হাদীস : ৫৫৯০ বয়াতীর এসব জ্ঞানহীন কথাবার্তায় সাধারন মানুষের বিভ্রান্ত হওয়া স্বাভাবিক। তাই তার মত অশুভ বাক্যচারীকে থামানো আইনের দাবী।আইন তাকে আমলে নিয়েছে, রিমান্ড মঞ্জুর করেছে, আমরা আশা করি এর সঠিক ফয়সালা আমরা পাবো।

কবি ও গণমাধ্যমকর্মী

nobosur15@gmail.com

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

পরিচালনা পর্ষদ

সম্পাদক ও প্রকাশক:
Admin
© ২০২০ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত.মুসলিম ভয়েস কোপেরেটিভ লি.
Design By NooR IT
themesba-lates1749691102