বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০১:১০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কাশ্মীরের জামা মসজিদ বন্ধ করে জুমার নামায পড়তে দেয়নি ভারত জুমার আলোচনায় খতিবদের ডেঙ্গু-গুজব-বন্যা নিয়ে বক্তব্য রাখার আহ্বান ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর মসজিদে গুলি করতে গিয়ে উল্টো ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন সাবেক মার্কিন সেনা! ইন্টারনেট সেবা নিতে চাইলে কোরআনে শপথ নিতে হবে মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে আয়ের একমাত্র অবলম্বন ভ্যানটি চুরি হয় বিমানবন্দরে লাগেজ হারিয়ে গেলে ফিরে পাওয়ার উপায় আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতির সাথে হিজরী সন সম্পৃক্ত: চরমোনাই পীর The story of success -Ashraf Ali Sohan চিত্রনায়িকা পরী মণি ও (এডিসি) সাকলায়েনের নতুন ভিডিও ফাঁস, দেখুন গোপালপুরে মসজিদে হামলায় বৃদ্ধ নিহত, সড়ক অবরাধ, আটক দুই কোম্পানীগঞ্জে দিনদুপুরে কলেজছাত্র অপহরণ ৪ দিন পরও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ বানিয়াচংয়ে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের আবিস্কার নিয়ে বিজ্ঞান মেলা অনুষ্ঠিত খুলনায় স্কুল ছাত্রীর নগ্ন ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ায় যুবক গ্রেফতার

মুসলিমবিরোধী আইনের প্রতিবাদে রাস্তায় দেওবন্দের নারীরা

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৭৭ Time View

জ্ঞান ও ঐতিহাসিক বিদ্যাপিঠের শহর দেওবন্দে নাগরিকত্ব সংশোধন আইনের বিরুদ্ধে পুুরুষদের পাশাপাশি শত শত নারী রাস্তায় নেমে এসেছে।

ভারতের ইসলামিক মিডিয়া জানায়, দেশটির বিতর্কিত এনআরসি ও সিএএ বিলের প্রতিবাদে প্লেকার্ড ও ফেস্টুন নিয়ে দেওবন্দের আবুল বারকাত মহল্লা থেকে মাঠে নামেন বোরকা পরিহীতা শত শত মুসলিম নারী।

Image may contain: one or more people, people standing, people walking and outdoor

তাদের হাতে থাকা প্লে কার্ডে বিভিন্ন স্লোগান লেখা ছিলো। তারা মুখে কোনো স্লোগান না দিলেও হাতে হাতে নেয়া ফেস্টুনে লেখা ছিল প্রতিবাদী বিভিন্ন স্লোগান।  ‘মোদী’ নিপাক যাক’,  ‘এনআরসি মানি না মানবো না’, ‘সিএএ মানি না মানবো না’- এসব স্লোগান লেখা ছিল ফেস্টুনে।

Image may contain: one or more people, people walking and outdoor

আরো কয়েকটি স্লোগান সবার নজর কেড়েছে, ‘আমার ভারতে সবার রক্ত মিশে আছে, এ মাটিতে মোদী-শাহের আদেশ চলবে ন চলবে না, সাম্প্রদায়িকতা বন্ধ করুন, করতে হবে।’

প্রতিবাদরত নারীরা ভারত একটি গণতান্ত্রিক এবং ধর্মনিরপেক্ষ দেশ বলে প্লে কার্ড প্রদর্শন করেন। তারা আরো লেখেন, এদেশের স্বাধীনতা, নির্মাণ ও বিকাশে প্রতিটি ভারতীয় ধর্মববর্ণ নির্বিশেষে সকল ত্যাগ স্বীকার করেছে।আজকে এদেশের বেশিরভাগ মানুষ ভালোবাসা ও সম্পৃতি নিয়ে অটুট বন্ধনে বেঁচে আছে। তাদেরকে সরকার আলাদা করতে চায়। একসাথে থাকুন একে অপরের ব্যথা আনন্দ এবং দুঃখ ভাগ করে নিন, এটাই আমাদের আদর্শ। কিন্তু সরকার এটা চায় না।

উল্লেখ্য, এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি ভারতীয় আইনসভার উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় পাস হওয়ায় আইন আকারে গৃহীত হলে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের মতো মুসলিম অধ্যুষিত দেশগুলো থেকে আসা কেবল অমুসলিমদেরই (হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, জৈন, শিখ ও পার্সি) নাগরিকত্ব মিলবে।

১৯৫৫ সালের মূল নাগরিকত্ব আইনে বলা হয়েছে,নাগরিকত্ব পেতে হলে দেশটিতে থাকতে হবে ১১ বছর। তা কমিয়ে এখন পাঁচ বছর করা হয়েছে। সংশোধিত বিলের উদ্দেশ্য প্রতিবেশী মুসলিম দেশগুলোর অমুসলিমদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া। তবে বিরোধীরা বলছেন,এই বিল মুসলিমদের প্রতি বৈষম্যমূলক।

বিভিন্ন ইসলামপন্থী, বিরোধী ও মানবাধিকার গোষ্ঠীর দাবি, ভারতের ২০ কোটি মুসলমানকে কোণঠাসা করতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হিন্দুত্ববাদী এজেন্ডারই অংশ এই আইন।

উত্তরপূর্ব ভারতের স্থানীয়রা বিভিন্ন কারণে এই আইনের বিরোধীতা করছেন। তাদের আশঙ্কা, এতে বাংলাদেশ থেকে বিপুল সংখ্যক হিন্দু অভিবাসীর ঢল নামবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

পরিচালনা পর্ষদ

সম্পাদক ও প্রকাশক:
Admin
© ২০২০ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত.মুসলিম ভয়েস কোপেরেটিভ লি.
Design By NooR IT
themesba-lates1749691102