নাগরপুরে এক অসহায় মায়ের পাশে, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ

সারোয়ার হোসেন, বিশেষ রিপোর্টার : টাংগাইলের নাগরপুরে ভাদ্রা ইউনিয়নের সেওরাইল গ্রামে বসবাস করেন মোছাঃ সাকিনা খাতুন নামে এক বৃদ্ধা। তিনি বহুদিন ধরে নানা রোগে ভুগছেন বলে খবর আসে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের কাছে। খবর পেয়ে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ নাগরপুর শাখা তৎক্ষণাৎ তাদের এক সহযোদ্ধাকে পাঠিয়ে বৃদ্ধার ব্যাপারে বিস্তারিত খোঁজ নেন। খোঁজ নিয়ে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ জানতে পারে যে, তিনি বিধবা এবং তার দেখবাল করার মত কোনো সন্তানাদি বা কোনো আত্মীয়-স্বজন নেই। এমনকি তার কোনো ভিটেমাটিও নেই। তিনি একই এলাকার অন্য এক বাড়িতে বসবাস করেন।
তিনি দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ হলেও নিজের চিকিৎসার কোনো ব্যবস্থা সে করতে পারেননি।

আজকে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ নাগরপুর শাখার কয়েকজন গিয়ে তাকে দেখে আসেন। এ সময় তারা তার জন্য বিভিন্ন রকমের ফল ফলাদি নিয়ে যান। এবং তার প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য নগদ পনেরোশত (১৫০০) টাকা দিয়ে আসেন।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ নাগরপুর শাখার সদস্য মোহাঃ ফাহাদুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমরা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ১৫০০ টাকা দিয়েছি এবং আমাদের এক সদস্যকে নিয়মিত তার খোঁজ রাখার জন্য দায়ীত্ব দিয়েছি। আর তার যদি বড় ধরণের কোনো চিকিৎসার প্রয়োজন হয় তাহলে আমরা আমাদের সাধ্য অনুযায়ী তাকে সর্বোচ্চ চিকিৎসা করানোর চেষ্টা করবো। তিনি আরো বলেন, হয়তো আমাদের একার পক্ষে খুব বড় ধরনের চিকিৎসা করা সম্ভব হবে না। তাই তিনি প্রশাসন এবং সমাজের বিত্তবানদেরকে মহিলার পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান। সমাজে এরকম আরো হাজারও অসহায় মানুষ রয়েছেন। প্রতিটি এলাকায় খোঁজ নিয়ে প্রশাসনকে তাদের পাশে দাঁড়ানোর তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

তাকে দেখতে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ নাগরপুর শাখার
মোঃ বুলবুল আহমেদ, মোঃ নাইম খাঁন, মোছাঃ হোসনেয়ারা এবং মোঃ আল-আমীন।