রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কাশ্মীরের জামা মসজিদ বন্ধ করে জুমার নামায পড়তে দেয়নি ভারত জুমার আলোচনায় খতিবদের ডেঙ্গু-গুজব-বন্যা নিয়ে বক্তব্য রাখার আহ্বান ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর মসজিদে গুলি করতে গিয়ে উল্টো ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন সাবেক মার্কিন সেনা! ইন্টারনেট সেবা নিতে চাইলে কোরআনে শপথ নিতে হবে মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে আয়ের একমাত্র অবলম্বন ভ্যানটি চুরি হয় বিমানবন্দরে লাগেজ হারিয়ে গেলে ফিরে পাওয়ার উপায় আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতির সাথে হিজরী সন সম্পৃক্ত: চরমোনাই পীর The story of success -Ashraf Ali Sohan চিত্রনায়িকা পরী মণি ও (এডিসি) সাকলায়েনের নতুন ভিডিও ফাঁস, দেখুন গোপালপুরে মসজিদে হামলায় বৃদ্ধ নিহত, সড়ক অবরাধ, আটক দুই কোম্পানীগঞ্জে দিনদুপুরে কলেজছাত্র অপহরণ ৪ দিন পরও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ বানিয়াচংয়ে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের আবিস্কার নিয়ে বিজ্ঞান মেলা অনুষ্ঠিত খুলনায় স্কুল ছাত্রীর নগ্ন ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ায় যুবক গ্রেফতার

জামালপুরে চুরের খনি উদ্ধার: মাত্র ৩৮৯ বস্তা

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২০
  • ২০৯ Time View

জামালপুরের আওয়ামী লীগ নেতাদের বাড়ি আর গোডাউন যেন সরকারি চালের গোডাউনে রুপ নিয়েছে। গতকাল শুক্রবার সদর উপজেলার শাহবাজ ইউনিয়নেই দুটি অভিযানে ৮৫+৭৪=১৫৯ বস্তা চাল উদ্ধার করেছে প্রশাসন।

সব খবর সবার আগে পেতে গ্রুপে জয়েন করুন 

এছাড়াও চাল উদ্ধার হয়েছে বকশিগঞ্জ এবং মেলান্দহ থেকেও। বৃহস্পতি রাত থেকে শুক্রবার সন্ধা পর্যন্ত চারটি অভিযানে চাল উদ্ধার হয়েছে মোট ৩৮৯ বস্তা।

জামালপুরে থেকে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যের ভিত্তিতে সংবাদটি তৈরি করা হয়ছে ।

শাহবাজপুর বিয়ারা বাজার

গতকাল বিকেলে শাহবাজপুরে দ্বিতীয় অভিযান চলে ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের বিয়ারা বাজারে। অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদা বেগম।

গোপন তথ্যের ভিত্তিতে শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে সদর উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের পাশতলা গ্রামের বিয়ারা বাজারে অভিযান চালান সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদা বেগম।

অভিযানে ওই গ্রামের বাসিন্দা জেলা পরিষদের সদস্য ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান দুলালের বাড়ির সামনে একটি গুদাম থেকে সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৩০ কেজি ওজনের ৭৪ বস্তা চাল জব্দ করা হয়।

সেখানে মোট চাল ছিলো ২ হাজার ২২০ কেজি। চালগুলো সব খাদ্য অধিদপ্তরের আসল বস্তা ভেঙে ৩৭টি বড় বস্তায় ভরা ছিলো। তবে সেখান থেকে কাউকে আটক করা হয়নি।

বিশেষ সূত্রে জানা যায়, খাদ্য অধিদপ্তরের সিলযুক্ত প্রকৃত বস্তা খুলে ৭৪ বস্তার সব চাল পোল্ট্রি খাদ্যের ৩৭টি বড় বস্তায় ভরে গুদামজাত করে রাখা হয়েছিল। অভিযানে গুদাম থেকে খালি করা খাদ্যঅধিদপ্তরের সিলযুক্ত ৭৪টি চটের খালি বস্তাও উদ্ধার করা হয়েছে।

পরে সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদা বেগম ৩৭ বস্তা চাল স্থানীয় নারায়ণপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের জিম্মায় রেখে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সদর উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন। সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদা বেগম এ অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তবে হাবিবুর রহমান দুলাল দাবি করেছেনে, এই চাল তার নয়। শীর্ষ একটি জাতীয় দৈনিককে তিনি মুঠোফোনে জানিয়েছেন, তার কাছ থেকে এই দোকান ভাড়া নিয়ে আরেকজন গুদাম হিসেবে ব্যবহার করছেন।

তিনি বলেন, বিয়ারা পলাশতলায় আমার ১৮টি দোকান রয়েছে। ওই সব দোকান থেকে একটি দোকান নূর ইসলাম নামের এক ধান-চালের ব্যবসায়ী ভাড়া নিয়েছেন। তিনি তিন বছর ধরে সেটাকে গুদাম বানিয়ে ব্যবসা করেন। এসব চাল আমার নয়।

তবে স্থানীয়রা বলছেন, ভিন্ন কথা। নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় এক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, হাবিবুর রহমান দুলাল হলেন চাল চোরের বড় হোতা। জেলা পরিষদের সদস্য এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা হওয়ায় তিনি পার পাবার চেষ্টা করছেন। মূলত তিনিই আড়ালে থেকে এসবের কালকাঠি নাড়েন।

অন্যদিকে শাহবাজপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেনও এই কারবারে জড়িত বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা জানান, শাহাবাজপুরে আওয়ামী লীগের এই নেতাই ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করেন। তার নিজের এলাকার ব্যবসায়ী নূর ইসলাম এর সাথে মিলে তিনিও গোপনে এই ব্যবসা পরিচালনা করেন।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদা বেগম বলেন, হাবিবুর রহমানের গুদাম থেকেই চালগুলো জব্দ করা হয়েছে। তবে ওই গুদাম নাকি নূর ইসলাম নামের একজন ভাড়া নিয়েছেন। চালগুলো কার, এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। এ ঘটনায় থানায় একটি নিয়মিত মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

শাহবাজপুর চিকারপাড়া

বিয়ার বাজারে অভিযানের আগে শুক্রবার সকালে (বেলা ১১টার দিকে) শাহবাজপুরের চিকারপাড়া থেকে সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ৮৫ বস্তা চাল উদ্ধার করে উপজেলা প্রশাসন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফরিদা ইয়াসমিনের নেতৃত্বে পরিচালিত ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে এসব চাল জব্দ করা হয়। তবে এসময় কাউকে আটক করা যায়নি।

শুক্রবার সাকলে জামালপুর সদর উপজেলার শাহবাজ ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের চিকারপাড়া গ্রামে ট্রাকে করে চালগুলো স্থানন্তর করার সময় এলাকাবাসী তা আটক করে প্রশাসনকে খবর দেয়। খবর পেয়ে ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের বাড়িতে অভিাযান চালান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফরিদা ইসয়ামিন। এসময় ৮৫ বস্তা ওএমএস এর চাল উদ্ধার করা হয়।

ইউএনও ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ‘এসব চাল হতদরিদ্রদের মধ্যে বিক্রি করার কথা ছিল। কিন্তু চালগুলো একটি বাড়িতে রয়েছে এমন খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে জব্দ করেছি। তবে কাউকে আটক করা যায়নি। চালগুলো কে বা কারা বিক্রি করেছেন, তদন্তের মাধ্যমে খুঁজে বের করে, আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে’।

বকশিগঞ্জ

এদিকে শুক্রবার সন্ধায় অভিযান হয়েছে বকশিগঞ্জে। জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা (এনএসআই) জামালপুর জেলা কার্যালয়ের তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে জেলার বকশীগঞ্জের ইউএনও আ. স. ম. জামশেদ খোন্দকারের নির্দেশে বকশীগঞ্জ পৌরশহরের বকশীগঞ্জ বাজারে অভিযান চালায় বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ।

এসময় ওই বাজারের খাদ্য ব্যবসায়ী নূর কালামের গুদাম থেকে সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ২৫ কেজি ওজনের ২০০ বস্তা চাল জব্দ এবং ব্যবসায়ী নূর কালামকে আটক করা হয়। জব্দ করা চালগুলো বকশীগঞ্জ থানার জিম্মায় রাখা হয়েছে।

বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শফিকুল ইসলাম এ অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল কালোবাজারে ক্রয় ও মজুদ রাখার অভিযোগে আটক খাদ্য ব্যবসায়ী নূর কালামকে আসামি করে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

মেলান্দহ

বৃহস্পতিবার রাতে চাল উদ্ধার হয় জামালপুরে মেলান্দহ থেকে। জামালপুর মেলান্দ উপজেলার চর বানিপাকুরিয়া ইউনিয়নের বেতমারী গ্রামের খাদ্য ব্যবসায়ী আব্দুল জব্বারের গুদাম ৩০ বস্তা চাল উদ্ধার করেছেন মেলান্দহ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তামিম আল ইয়ামীন। উদ্ধার হওয়া এসব চাল হতদিরদ্রের জন্য ১০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করার কথা ছিলো।

সব খবর সবার আগে পেতে গ্রুপে জয়েন করুন 

cover photo, No photo description available.

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

পরিচালনা পর্ষদ

সম্পাদক ও প্রকাশক:
Admin
© ২০২০ প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত.মুসলিম ভয়েস কোপেরেটিভ লি.
Design By NooR IT
themesba-lates1749691102